নামায

কুরআন ও হাদিসের আলোকে নামাযের সংক্ষিপ্ত আলোচনা

‘সালাত’ আরবি শব্দ ।  বাংলা ভাষায় প্রচলিত ‘নামায’ মুলত ফারসি শব্দ । সালাত শব্দের আভিধানিক অর্থ প্রথনা , অনুগ্রহ , পবিত্রতা বর্ণনা করা ও বিস্তৃত করা ।ইসলামী পরিভাষায় শরীয়াতের নিয়ম মোতাবেক এক বিশেষ পদ্ধতিতে আল্লাহর গুণগান করা , রুকু-সিজদাহ আল্লাহর ইবাদাত করাকে সালাত বলা হয় । ইসলামের মৌলিক ইবাদাতের মধ্যে সালাত হচ্ছে সর্বোত্তম ইবাদাত । মিরাজের রাত্রে উম্মতে মুহাম্মদীর উপর পাঁচ ওয়াক্ত সালাত ফরয হয় ।

ঈমানের পর ইসলামের প্রধান স্তম্ভ ও শ্রেষ্ঠ ইবাদত হচ্ছে সালাত । ঈমান আনার সাথে সাথেই প্রত্যেক বালেগ ও আকেল ( সুস্থ মস্তিস্ক সম্পন্ন ) লোকের উপর সালাত ফরয । একজন ইমানদার ও একজন কাফেরের মাঝে পার্থক্য হলো ইমানদার সালাত পড়ে আর কাফের সালাত পড়ে না । সালাতই মুসলমানের পরিচয় । এই সালাতের মাধ্যমেই বান্দা আল্লাহর কাছাকাছি পৌঁছে যায় । এ কারনে হাদিসে সালাতকে মু’মিনদের মি’রাজ বলা হয়েছে ।

১ / যারা অদৃশ্যে ঈমান আনে , সালাত কায়েম করে ও তাদেরকে যে জীবনোপকরণ দান করেছি তা হতে ব্যয় করে । [ ২- সূরা আল বাক্বারাঃ আয়াত – ৩ ]

About the author

islamiclife@24

Leave a Comment

%d bloggers like this: